window.dataLayer = window.dataLayer || []; function gtag(){dataLayer.push(arguments);} gtag('js', new Date()); gtag('config', 'UA-151379677-3');

অল্প পূঁজিতে প্রবাসীদের প্রবাস থেকে ব্যবসা করার কিছু সহজ আইডিয়া।

0
(0)

প্রবাসের দিকে সবাই দিনে দিনে ঝুকে পড়েছেন। যাদের ব্যবাসার নেশা আছে তারা ইচ্ছে করলেই প্রবাস থেকে ব্যবসা করতে পারেন। প্রবাস থেকে ব্যবসা করার আজ কিছু সহজ ও সঠিক আইডিয়া দিবো। অনেক দেশেই প্রবাসীদের জন্য ব্যবসা করার অনুমতি আছে এমনকি প্রবাসে বাস্থান করার অনুমতিও আছে। তার আগে বলে রাখি ব্যবসা কোন ধরনের পেশা থেকে চলে আসে না। ব্যবসা হলো নেশা, নেশা থেকেই পেশা হিসেবে চলে আসে। যাদের ব্যবসার নেশা রয়েছে তাদের মাঠির নিচে রেখে দিলেও খুজবে মাঠির নিচ থেকে কিসের কিসের ব্যবসা করা যায়। এছাড়া সব থেকে বড় বিষয় হল অনেক টাকা খরচ করে বিদেশে পারি জমায়, সেখানে গিয়ে কাজ না পেয়ে অনেকেই আস্থা হারিয়ে ফেলে। কাজ নেই তো কি হয়েছে আপনি বেদেশে গিয়ে এইনসব ব্যবসার সাথে নেমে পড়ুন আয় হবেই। আজ আমি সেই সব প্রবাসী ব্যবসা পাগল ভাইদের জন্য প্রবাস থেকে ব্যবসা করার আইডিয়া দিবো। এগুলো আপনি প্রাবাসের মধ্যে করতে পারেন আবার প্রবাস থেকে দেশেও ব্যবসা করতে পারেন। চলুন শুরু করা যাক কিছু ব্যবসার চাবিকাঠি।

প্রবাস থেকে হাতের কাজের ব্যবসা করুন

আপনি যদি হাতের কাজের ভাল কিছু জানেন যেমনঃ কাপড়ের নকশার কাজ, ছাদের ইন্টয়রিয়র, সহ বিভিন্ন কিছু মোট কথা আকর্ষনীয় হাতের কাজ জানলে আপনি তা বিক্রি করে আয় করতে পারবেন। যদি আপনার হাতের কাজ কোন কারনে সেই দেশে ভাইরাল হয় তাহলে আপনাকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হবে না।

টুপির ব্যবসা

আপনি এমন একটি ব্যবসার মাঝে চলে এসেছেন যে ব্যবসা করে আপনার একদিকে ছওয়াব পাচ্ছেন অন্যদিকে আপনি আয় করতে পারছেন। আপনি টুপির ব্যবসাটি খুব সুন্দর করে করতে পারেন। আরবের দেশগুলোতে অনেক টুপির চাহিদা লক্ষ করা যায়। আপনারা যদি প্রবাসী কয়েকজন বন্ধু নিয়ে টুপির কারখানা করে ব্যবসা শুরু করতে পারেন আর ডিজাইনহুলো যদি খুব ভাল হয় তাহলে আপনার বাসা থেকেই তারা টুপি কিনে নিয়ে যাবে । আপনি গ্রুপ নিয়ে টুপির ব্যবসা শুরু করতে পারেন। হয়ত লক্ষ করেছেন ওমান ও সৌদি আরবে বাংলাদেশী টুপির চাহিদা অনেক। আপনি যেহেতু বাঙালী তাই আপনার টুপি সমন্ধে ধারনা ভালই আছে।

শিফট ব্যবসা

আপনি কোন পূঁজি ছাড়াই হস্তান্তর বা শিপ্ট ব্যবসা করতে পারেন। এর জন্য আপনাকে ভিসিটিং কার্ড তৈরি করে প্রত্যেক বাড়িতে দিয়ে আসুন। আপনি হয়ত জানেন বাহিরের লোকেরা ১/২ মাস পর পরেই বাসা বা ঘর চেন্স করে। ঘর বা রুমের আসবাবপত্র সরানোর জন্য লোকের দরকার পরে। তখন তারা একজন লোক খুজতে থাকে। আপনি আপরার ভিসিটিং কার্ড যে দিয়ে এসেছেন সেখান থেকে তারা আপনার ফোন নাম্বার নিয়ে আপনাকে ডাকবে। আপনি চলে গিয়ে তাদের রুম বা বাসা স্থান্তর করে আয় করতে পারবেন।

ইলেক্ট্রিক মিস্ত্রী

এবার আসুন আর একটি হাতের কাজের ব্যবসার উপর। সেটি হলো ইলেক্ট্রিক মিস্ত্রীর ব্যবসা। আপনি দেশে থাকা অবস্থায় এই সবে পারদর্শী ছিলেন। বিদেশে গিয়েও আপনি এসব কাজ করতে পারেন। এরজন্য ভিসিটিং কার্ড মার্কেটিং করুন। তাদের ছোট খাট কোন ইলেক্ট্রিক সমস্যা হলে আপনাকে তারা ফোন করে ডেকে কাজ করিয়ে নিয়ে ডলার দিবে। এতে আপনার আয়ের পথ শুরু হতে থাকবে।

সার্ভার কল ও লোড এর ব্যবসা

প্রাবসীদের সবারেই বউ না থাকলেও একটা থেকে ৫ পর্যন্ত মোবাইলফোন আছেই। অনেক প্রবাসী সেই মোবাইলগুলোকে বউ মনে করে মনকে শান্তনা দিয়ে থাকে। মোবাইল চালানোর জন্য রিচার্য তো করা লাগেই। তাই আপনি প্রবাসে রিসেলার সার্ভার নিয়ে সার্ভার কল করার কার্ড বিক্রি করতে পারেন। এছাড়া মোবাইলে মেগাবাইট লোড সহ বিভিন্নরকম লোড এর ব্যবসা করতে পারেন। সব থেকে ভাল হয় আপনি যদি বাঙালী তাবুতে ভাল মার্কেটিং করতে পারেন তাহলে কাস্টমারের অভাব থাকবে না।

প্রবাসে বিকাশের ব্যবসা করুন

ব্রাক ব্যাংক এর বিকাশ বর্তমানে দেশের এক নাম্বার ম্যানি ট্রাস্ফার ব্যবসা, দেশে তো ভাল চলছেই তার সার্ভিস বিদেশেও কম না। আপনি চাইলে বিকাশের ব্যবসা প্রবাস থেকেও করতে পারেন। এছাড়াও সাথে এমক্যাশের ব্যবসাও করতে পারেন। ভাল মার্কেটিং করলে আপনার ভাল কাস্টমার হবে ও আয় ভাল হবে।

ভিওআইপি সেবা দিয়ে ব্যবসা

আপনি ভিওআইপি Voip সেবার মাধ্যমে ব্যবসা করতে পারবেন। এটা পৃথিবীর যে কোন প্রান্ত থেকে এবং খুব সহজেই এই ভিওআইপি এর ব্যবসা করতে পারবেন। তারআগে আপনাকে জানতে হবে ভিওআইপি কি ও এর কাজ কি? ভিওআইপি হল এক ধরনের সার্ভার যার মধ্য একের ভিতর সব সেবা গ্রাহককে দিতে পারবেন। চলুন দেখে নেই ভিওআইপি কি কি সেবা দেয়: ভিওআইপি ভয়েসকল সেবা প্রদান করে, আন্তর্জাতিক মানের কলিংকার্ড সেবা দেয়, আন্তর্জাতিক মানের মেসেজ আদান প্রদানের সেবা দেয়, আন্তর্জাতিক ফাইল আদান প্রদানের সেবা দেয় , আন্তর্জাতিক ভিডিও কলিং সেবা, বিশ্বের যে কোন দেশ থেকে টাকা পাঠানো ও উঠানোর সেবা, বিকাশ রকেট সহ সব ধরনের সেবা ও ফেক্সিলোড সেবা, বিশ্বের যে কোন দেশের ব্যাংকিং সেবা, আন্তর্জাতিক মানের ভিপিএন সেবা, হোস্টিং সেবা ও হোস্টিং সুইচ সেবা, ডায়ালার সেবা ও আন্তর্জাতিক রাউট সেবা, নিজের নামে কোম্পানী খোলার সেবা, ওয়েবসাইট সেবা সহ বেশ অনেক রকম সেবা। মোট কথা একের ভিতর সব সেবা পাবেন ভিওআইপি এর মাধ্যমে। বর্তমানে অনেক এজেন্সি এগুলো প্রভাইট করতেছে। আপনি সেখান থেকে নিয়ে ভিওআইপি ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

সুগন্ধি বা আতরের ব্যবসা

আপনি প্রবাসে এই ব্যবসাটি করতে পারেন ভাল করেই। কারন সুগন্ধি ও আতরের চাহিদা প্রবাসে অনেক এবং লাভও বেশি। তাই আপনি ভালমানের আতর ও সুগন্ধি কিনে ব্যবসা শুরু করতে পারেন। কিছুদিন আদে দেখেছিলাম এক ভাই প্রবাসে মসজিদের সামনে আতর ও সুগন্ধি ব্যবহার করে কোটিপতির বনে গিয়েছেন। তাই আপনিও করতে পারেন এই ব্যবসা ।

ক্লিনিং সার্ভিসের ব্যবসা

পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা কে না পছন্দ করে। আর ঘরের ও বাড়ির অপরিচ্ছন্নতা থাকলে সেই বাড়িতে থাকতে মন চায় না। তাই বাহিরের দেশের প্রায় সবাই চায় তাদের বাড়ি ও আসবাবপত্র পরিস্কার থাকুক। আপনি ক্লিনিং সার্ভিসের ব্যবসাটি বেচে নিতে পারেন। এরজন্য আপনাকে ভিসিটিং কার্ড মার্কেটিং করতে হবে। তারা আপনাকে তাদের ঘর, রুম, অফিস সহ আসবাবপত্র পরিস্কার করে নিবে। এখান থেকেও আপনি সহজে আয় করতে পারবেন।

কারওয়াশ এর কাজ

প্রবাসে আপনি কার ও মোটর বাইক ওয়াশ করে ভাল আয় করতে পারবেন। এই কাজ করতে গেলে আপনাকে কোন কার ওয়ার্কশপ এরিয়ার সাথে চুক্তি করে ব্যবসা করতে পারবে। প্রতিদিন ৫ টা কার ওয়াশ করতে পারলেই আপনার ভাল ইনকাম হবে।

প্রবাসে থেকে বাড়িতে কি কি ব্যবসা করবেন

আপনি প্রবাসে থাকেন কিন্তুু বাড়িতে ব্যবসা করার ইচ্ছে আছে। তাই আপনি বাড়িতে ব্যবসা করার পরিকল্পনা নিতে পারেন। আপনি যে ব্যবসা করুন না কেন যারা আপনার খুব বিশ্বাসি ও কখনও বিশ্বাসের অমর্যাদা করবে না তাদের দিয়ে ব্যবসা করাতে পারেন। তাহলে দেখে নেই প্রবাসে থেকে বাড়িতে কিছু ব্যবসা করার আইডিয়া।

গরু পালনের ব্যবসা

আপনি গরু পালন করে তা বিক্রি করে ব্যবসা করতে পারেন। প্রথম অবস্থায় ফার্ম দেওয়ার দরকার নেই। আপনি প্রথমে ২/১ টা ভাল জাঁতের গরু কিনে লালন পালন করুন। তারপর তা বিক্রি করুন। যদি সব কিছু ঠিক থাকে তাহলে আপনি ভাল আয় করতে পারবেন

স্টক ব্যবসা করুন

আপনি খাদ্যের স্টক ব্যবসা করতে পারেন যেমন ধান, চাল, গম, ভূট্টা সহ প্রভৃতি। আপনি এগুলো সঠিক ভাবে কিনে গুদামজাত করে তা বিক্রি করুন। স্টক ব্যবসা হালাল নাকি হারাম সেদিকেও একটু খেয়াল করবেন। এর জন্য আপনি আলেমের পরামর্শ নিতে পারেন।

ডিলারশিপ ব্যবসা

প্রবাসে থেকে আপনি ডিলারশীপ বা পরিবেশক ব্যবসা করতে পারেন। এর জন্য আপনাকে বিভিন্ন কোম্পানির সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়ে কাজ করতে পারেন। লাভজন পণ্য নিয়ে আপনি এই ব্যবসায় নামতে পারেন। এখান থেকেও আপনি ভাল আয় করতে পারেন।

মুদির দোকান

আপনি আপনার পাড়ায় একটি মুদির দোকান দিয়ে ব্যবসায় নেমে পড়তে পারেন। মুদিমালের ব্যবসায় ১০ থেকে ২০% পর্যন্ত লাভ করা যায়। একটি দোকানে থাকবে বিভিন্ন রকম আইটেম। সেখান থেকে আপনি তা বিক্রি করে ভাল আয় করতে পারেন।

জমির ব্যবসা

আপনি বছরে বছরে জমি কিনে রাখতে পারেন। দির দিন জমির দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে। আপনি আপনার বাবা মা বা নিজের নামে জমি কিনে নিন। অথবা আপনি যখন প্রবাস থেকে ছুটিতে আসবেন তখন একসাথে জমি কিনে রাখতে পারেন।

এছাড়া রয়েছে আরও হাজার হাজার ব্যবসা করার আইডিয়া। আপনি যদি একজন ব্যবসা পাগল লোক হোন তাহলে আজেই নেমে পড়তে পারেন ব্যবসা নিয়ে। আগেই বলেছি নেশা থেকেই ব্যবসার পেশা হয়ে যায়। সৎ ও হালাল উপায়ে ব্যবসা করুন একদিন সফল হবেন ইনশাইল্লাহ। আর আমার জন্য অবশ্যই দোয়া করবেন। লকডাউনে আমার ব্যবসায় অনেক লস হয়ে গিয়েছে। আমি যেন আবার স্বাভাবিক হতে পারি এই দোয়া করবেন।

লেখাটি আপনার কাছে কেমন লেগেছে, অনুগ্রহ করে সে অনুযায়ী ভোট দিন

ভোট দিতে স্টার বাটনে চাপুন

We are sorry that this post was not useful for you!

Let us improve this post!

Tell us how we can improve this post?

পোস্টটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন

1 thought on “অল্প পূঁজিতে প্রবাসীদের প্রবাস থেকে ব্যবসা করার কিছু সহজ আইডিয়া।”

  1. কোন ব্যেক্তি অথবা প্রতিষ্ঠান এ ব্যবসায় বিনিয়োগ করতে আগ্রহী হলে যোগাযোগ করতে পারেন আমার জরুরি একজন ইনভেস্টর প্রয়োজন
    Amount: 5- 70Lacs,

    (10%-30% Profit sharing)
    Profit : 5% – 10% monthly of Invested amount.
    Halal Investment by
    (Lamis Farishta)

    Reply

Leave a Comment