window.dataLayer = window.dataLayer || []; function gtag(){dataLayer.push(arguments);} gtag('js', new Date()); gtag('config', 'UA-151379677-3');

গ্রামে ব্যবসা করার ১৭ টি আইডিয়া যা দিয়ে আপনি গ্রামে ব্যবসা করতে পারেন।

0
(0)

এখন আর আগের দিন নেই। সব কিছু আগে নির্ভর করত শহরের উপর। বিয়ে সাদী সহ সব ধরনের অনুষ্ঠানের জন্য মার্কেট করতে মানুষ শহরের দিকে যেতো। এখন আর আগের মত নেই গ্রামে ব্যবসা করার দিন এসেছে। অনেকেই এখন গ্রাম থেকেই সব বাজার করে নিয়ে আসে। ভৌগলিক অবস্থা বুঝে আপনি ঠিক করবেন যে আপনার গ্রামের বাজারের ব্যবসাতে কোন জিনিসের চাহিদা বেশি। সেই সব কিছু নিয়ে আপনি নেমে পড়তে পারেন। আজ আলোচনা করব গ্রামে ব্যবসার আইডিয়া নিয়ে। যা আপনার এলাকার ছোট বাজার ও ছোট মেট্টো বাজারে করতে পারেন। সেটি খুবেই লাভজনক ও অল্প পূঁজিতে করতে পারবেন। চলুন দেখে নেওয়া যাক সেই ১৭ টি গ্রামের লাভজনক ব্যবসা।

কাঁচা মালের দোকান

আপনি সবজির দোকান দিতে পারেন। এর চাহিদা বেশ বেশি হয়। আপনি কাঁচা সবজির সব আইটেম ও আলু, রসুন, পেঁয়াজের ব্যবসা করতে পারেন। যেহেতু কম পূঁজি নিয়ে ব্যবসা করবেন তাই এই ব্যবসাটি কম পূজির মধ্যে লাভজনক ব্যবসা।

সারের ডিলার

গ্রামে সারের চাহিদা প্রচুর পরিমানে হয়। জৈব সার ও রাসায়নিক সারের উপরেই কৃষকেরা নির্ভর করে থাকে। তাই আপনি ভিভিন্ন কোম্পানির রাসায়নিক ও জৈবিক সারের ডিলার নিয়ে ব্যবসা করতে পারেন। আপনি কোন কোম্পানির সারের ডিলার নিবেন তা নির্ভর করবে কোম্পানি ও আপনার শর্তের উপর। এছাড়া সারের সাথে আপনি কীটনাশকের ব্যবসা করতে পারেন। যেহেতু সার ও কীটনাশক এক শ্রেণীর তাই আপনি একটি দোকানেই দুই ব্যবসা করতে পারবেন।

ব্যাগ তৈরির ব্যবসা

বর্তমানে সব দোকানেরেই নিজেস্ব ব্যাগ থাকে। এতে করে তাদের পণ্য বিক্রির জিনিস পত্র সহজেই কাস্টমার বহন করতে পারে। এছাড়া আরেকটি ভাল ফল পায় তা হল এ্যাড হয় সেই দোকানের। আপনি না না রঙ্গের ও সুন্দর সুন্দর ডিজাইন করে শপিং ব্যাগ তৈরি করুন। শপিং ব্যাগ তৈরি করার জন্য বেশি কাজ জানতে হবে না ও আপনাকে তেমন পূঁজি খাটাতে হবে না। আপনি টিস্যু ব্যগের কাপড় কিনে নিয়ে এসে দোকারের নামে প্রিন্ট করে তাদের ডেলিভেরি দিন। আপনি এসব টিস্যু শপিং ব্যাগ তৈরি করে শুধু গ্রামের দোকানে বিক্রি নয় শহর থেকেও অনেক কাজ পাবেন।

ফাস্টফুড আইটেম এর ব্যবসা

শহরে খুব ভাল চলে ফাস্টফুড আইটেম। শহরে যেহেতু ভাল চলে তাহলে অবশ্যই গ্রামেও চলবে। তাই আপনি গ্রামে একটি ফাস্টফুড আইটেমের ব্যবসা করতে পারেন। শহরের তুলনায় গ্রামে কম্পিডিশন কম হবে। তাই আপনার জন্য ভাল। ফাস্টফুডের সাথে আপনি কফি চা ও বিভিন্ন ধরনের মুখরোচক খাদ্য বিক্রি করতে পারেন। এই ব্যবসায় কম পূঁজি খাটিয়ে ভাল লাভ করতে পারবেন।

বেকারির ব্যবসা

আপনি ইচ্ছে করলে গ্রামে বেকারির ব্যবসা করতে পারেন। হয়তো লক্ষ করেছেন গ্রামে পাউরুটি, বিস্কুট, চানাচুর, কেক সহ এসব বেকারি আইটেম অনেক ভাল চলে। আর এসব প্রায় বেশির ভাগ সাপ্লাই দিয়ে থাকে শহরের উদ্দ্যোক্তারা। তাই আপনি গ্রামেই দিতে পারেন একটি বেকারির কারখানা। খুব ভাল আয় করতে পারবেন এখান থেকে। কারন আজকাল সবাই চায় টাটকা কিছু জিনিস খেতে ও পেতে। যদিও বেকারির কারখানা করাটা একটু ব্যয়বহুল তারপরেও শুরু করতে পারেন লাভের জন্য।

জ্যাম জেলি তৈরি

বর্তমানে জ্যাম ও জেলির ব্যবসার ব্যাপক প্রচলন। এখন সবাই ভাত কিংবা নাস্তার সাথে জ্যাম ও জেলি খেয়ে থাকে। এছাড়া মেয়দের জন্য জ্যাম এ জেলির প্রিয়ত্ব অনেক। আপনি বোয়ামে করে এসব বিক্রি করতে পারেন। অবশ্যই ভাল মানের জ্যাম ও জেলি মেকিং করতে পারলে আপনার শুধু গ্রামে নয় শহরেও ভাল ব্যবসা করে আয় করতে পারবেন।

সাইবার ক্যাফে

আপনি যদি আইটিতে পারদর্শিতা হোন তাহলে একটি সাইবার ক্যাফে দিয়ে বসতে পারেন। এরজন্য আপনাকে দরকার হবে কয়েকটি পিসি ও ইন্টারনেট। সাইবার ক্যাফে এমন একটি ব্যবসা যা বর্তমানে গ্রামে ও শহরে বেশ চাহিদা রয়েছে। গ্রামের বেশিরভাগ লোকের পিসি বা ল্যাপটপ নেই। অনেক সময় তাদের পিসিতে ব্রাউজ করার দরকার হয়। আপনি ঘন্টা সহকারে তাদেরকে আপনার কম্পিউটার ও ইন্টারনেট ব্যবহার করতে দিয়ে আয় করতে পারেন।

কম্পিডিটার ট্রেইনিং সেন্টার

আপনি যদি গ্রামে একটি কম্পিডিটার ট্রেইনিং সেন্টার দেন তাহলে একদিকে যেমন ভাল আয় করতে পারবেন অপর দিকে একজন শিক্ষক হিসেবে ভূষিত হবেন। গ্রামের ছেলে ও মেয়েরা শহরমুখী হয় অনেক সময় কম্পিডিটার ট্রেইনিং দেওয়ার জন্য। আপনি যদি ট্রেইনিং সেন্টার খুলেন তাহলে একদিকে ঘরের ছেলে ঘরেই থেকে কম্পিডিটার ট্রইনিং শিখতে পারছে অপরদিকে আপনার আয় হচ্ছে ভাল।

ডিস লাইনের ব্যবসা

সব শহরে ডিস লাইন থাকলেও বেশিরভাগ গ্রামে নেই ডিস লাইন। ডিস লাইন না থাকায় গ্রামের মানুষেরা তথ্য ও বিনোদন সেবা থেকে হচ্ছে বঞ্চিত। গ্রামের লোকেদের ডিসলাইন সেবা দিয়ে আপনি আয় করতে পারেন। ডিসের ব্যবসা করতে যেহেতু বেশ পুঁজির দরকার হয় তাই আপনাদের বন্ধুদের মধ্যে কয়েকজন শেয়ার দিয়ে এ ব্যবসা করতে পারেন। গ্রামের কম বেশি হলে প্রায় প্রত্যক বাড়িতে টিভি আছে কিন্তু ডিস লাইন নেই। তাই আপনি ভাল কিছু করতে পারবেন ডিসের ব্যবসা দিয়ে।

ওয়াইফাই এর ব্যবসা

আর একটি ব্যবসা খুব চমৎকারভাবে করতে পারেন। সেটি হল ওয়াইফাই এর ব্যবসা। গ্রামে প্রায় সবার হাতে হাতেই ফোন রয়েছে। আর গ্রামে সব থেকে একটি প্রব্লেম হল নেট একদমেই থাকে না। বেশিরভাগ গ্রামে 3G নেট তো দুরের কথা, 2G নেটও পাওয়া যায় না। তাই আপনি ওয়াই ফাই এর ব্যবসা করতে পারেন। বর্তমানে বাংলাদেশে অনেক কোম্পানী ও সরকারিভাবে বিটিসিএল এর মাধ্যমে ওয়াই-ফাই এর কমিশন এজেন্ট ও ডিলার নিয়োগ দিচ্ছে। আপনি যেখানে ভাল সুবিধে পাবেন সেখান থেকে নিয়ে ব্যবসা করবেন। ডিস ব্যবসার মত ওয়াইফাই ব্যবসাও কিন্তুু একটু ব্যয়বহুল তাই আপনারা বন্ধুরা মিলে শেয়ারে করতে পারেন।

ব্যাংকিং কমিশন এজেন্ট

আগের সময়ে ব্যাংক একাউন্ট এ টাকা আদান প্রদান করার জন্য শহরের ব্যাংক যেতে হত। এখন আর সেইদিন নেই। এখন ডিজিটাল যুগ। তাই ডিজিটাল যুগের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের প্রায় সব ব্যাংক এর গ্রামে এজেন্ট ব্যাংকিং সেবা চালু করেছে। আপনি নিজে কোন ব্যাংক থেকে এজেন্ট ব্যাংকিং নিয়ে এ ব্যবসা গ্রামে থেকে করতে পারেন। এর থেকে আপনাকে কমিশন দেওয়া হবে। এখান থেকেও আপনার আয় করার বড় সুযোগ রয়েছে।

মুদি মালের ব্যবসা

গ্রামে সব থেকে জনপ্রিয় ব্যবসা হল মুদিমালের ব্যবসা। আপনি ইচ্ছে করলেই এ ব্যবসায় নামতে পারেন। আপনি মুদিমালের ব্যবসা শুধু গ্রামের বাজারে নয় ইচ্ছে হলে গ্রামের রাস্তার পাশে একটি মুদিমালের দোকান দিয়ে ভাল আয় করতে পারবেন।মুদিমালের ব্যবসায় বাকি হারাম, বাকি দিলেন তো পূঁজি হারানোর ভয়ে সব সময় থাকবেন।

স্বাস্থ্য কেন্দ্র স্থাপন করুন

গ্রামে বেশিরভাগ সময়ে লক্ষ করা যায় সবাই স্বাস্থ্য পরিক্ষা করার জন্য শহরমুখি হয়। এর কারন হলো গ্রামে ভাল মানের ডাক্তার পাওয়া যায় না। কোয়াব ও হাতুরী ডাক্তার দিয়ে চিকিতৎসা করাতে গেলে অনেক ঝামেলা হয়। তাই আপনি একটি ভাল মানের স্বাস্থ্যকেন্দ্র দিতে পারেন। শহর থেকে একজন বা দুজন ডাক্তার সেই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে বসানোর ব্যবস্থা করুন। তারপর প্রয়জনীয় জিনিসপত্র নিয়ে এসে সেবাদান করে আয় করতে থাকুন। স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সাথে আপনি একটি ডিসপেনসারি এর দোকান দিলেও এর থেকে ভাল আয় করতে পারবেন।

ফেক্সিলোড বিকাশ রকেট ও নগদের ব্যবসা

আপনি ইচ্ছে করলে গ্রামের বাজারে বা রাস্তার পাশে ফেক্সিলোড ও বিকাশ, নগদ, রকেট, শিওরক্যাশ সহ সব ধরনের মোবাইল ব্যাংকিং এর ব্যবসা করতে পারেন। ইচ্ছে করলে আপনার যদি পুরাতন কোন ব্যবসা থাকে তার সাথে এই ব্যবসাগুলো যোগ করে ভাল আয় করতে পারেন।

গবাদি পশুর ডাক্তার

গ্রামে গবাদি পশু প্রচুর পালন করা হয়। আর পশু পাখির রোগ তো লেগেই থাকে সব সময়। আপনি তাই পশু পাখির সেবা দিয়ে ভাল আয় করতে পারেন। গ্রামে ভেটানারি ডাক্তারের চাহিদা বেশ ভালই। আপনি যে কোন সরকারি বা বে-সরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে পশু ডাক্তারের ট্রেইনিং দিয়ে সার্টিফিকেট নিয়ে এই পেশায় নামতে পারেন। সাথে একটি পশুর রোগ বালাইয়ের ঔষধের ডিসপেনসারি দিয়ে ভাল আয় করতে পারবেন।

আরৎ দিয়ে ব্যবসা

আপনি যে কোন কাচামালের আরৎ দিয়ে তা থেকে আয় করতে পারেন। গ্রামের সব রকম সবজি সংগ্রহ করে তা শহরে পাঠিয়ে দিয়ে ভাল আয় করতে পারেন। আরৎ যে শুধু কাচামালের দিবেন তা নয়। মাছ, ডিম, দুধ, কলা, ফল, সহ বিভিন্ন রকম জিনিসের একটি আরৎ বা সংগ্রহশালা তৈরি করে তা বিভিন্ন শহরে পাঠিয়ে দিয়ে ভাল আয় করতে থাকুন।

গ্রামের ঐতিহ্য খাদ্য বিক্রি করুন

আপনি গ্রামের হারিয়ে যাওয়া খাবারগুলো শহরে সাপ্লাই দিয়ে ভাল আয় করতে পারেন। আপনি এমন পণ্য দেখুন ও খুজুন যেগুলো কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে চিন্তু কদর আছে বেশ। যেমন শিদল এক ধরনের গ্রামের খাদ্য। এর রয়েছে বেশ চাহিদা। আপনি শিদল তৈরি করে শহরে বিক্রি করুন। একদিকে যেমন পুরাতন ঐতিহ্য ফিরে আসতেছে অপরদদিকে আপনি আয় করতে পারতেছেন। শিদল ছাড়া অনেক রকম গ্রামের খাদ্য আছে যেগুলো শহরে বেশ চাহিদাপূর্ণ সেগুলো আপনি খুজে বের করুন।

ই-পণ্যের সেবা দিয়ে ব্যবসা করুন

আপনি গ্রামে আরও একটি ব্যবসা করতে পারেন সেটা হল ই-পণ্যোর সেবা। গ্রামের লোকেদের অনেক সময় বাহিরের দেশের পণ্য, যন্ত্র লাগে। যেগুলো আলিবাব ডট কম ও বিশ্বের অন্য দেশের ই-কমার্স সাইট এ পাওয়া যায়। আপনি সেগুলো গ্রাহকের চাহিদামত অনলাইনে অর্ডার করে এনে তাদের হাতে পৌছে দিয়ে ভাল আয় করতে পারেন। এ ব্যবসাটি গ্রামে একটু কম চলবে। তাই আপনি অন্য ব্যবসার পাশাপাশি ই-পণ্যে ব্যবসা করতে পারেন।

এছাড়া গ্রামে ব্যবসা ও গ্রাম থেকে ব্যবসা করার জন্য রয়েছে নানা রকম আইডিয়া ও হাজার মূখী ব্যবসা। যা করে আপনি ভাল আয় করতে পারবেন। আপনি নিজেই মনিটরিং করে দেখুন কোন ব্যবসা করলে আপনি ভাল আয় করতে পারবেন এবং ঝুকি কম। এবার সেই ব্যবসা করে আপনার বেকারত্বের বোঝা দুর করে হয়ে উঠুন একজন সফল উদ্দ্যোক্তা।

লেখাটি আপনার কাছে কেমন লেগেছে, অনুগ্রহ করে সে অনুযায়ী ভোট দিন

ভোট দিতে স্টার বাটনে চাপুন

We are sorry that this post was not useful for you!

Let us improve this post!

Tell us how we can improve this post?

পোস্টটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Comment