গুগল এডসেন্স না পাওয়ার কারনগুলো দেখুন।

0
(0)

আমাদের অনেকের সখ ও পেশা হয়েছে ব্লগিং করা। একসময় ব্লগিং করে আপনি শুধু সখ মেটাতে পারবেন। একদিন সেই সখ কে তৈরি করে নিবেন পেশা হিসেবে। আর ব্লগিং করে পেশাদার হতে হলে অবশ্যই আপনাকে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে হবে। অনলাইন থেকে ইনকাম করার রয়েছে হাজার হাজার আইডিয়া। তবে আজ আপনাদের জানাবো কিভাবে আপনি google adsense  গুগল এডসেন্স থেকে আয় করতে পারবেন এবং এই এডসেন্স পাওয়ার জন্য আপনাকে কি কি করতে হবে।  এছাড়া আপনি যে সকল কারনে গুগল এডসেন্স পাবেন না তার বিস্তারিত কারনগুলো বর্ণনা করবো। আশাকরি আপনি পোস্ট টি সমপূর্ণ ভালভাবে পড়বেন এবং গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করবেন। চলুন শুরু করি কি কি কারনে আপনি আপনার ওয়েবসাইট এর খারাপ দিকগুলো থাকলে আপনি এডসেন্স আবেদন করতে পারবেন কিন্তুু গুগল এডসেন্স পাবেন না।

ওয়েব সাইট এর বয়স কম হওয়া

আপনার ওয়েব সাইট এর বয়স যদি কম হয় তাহলে আপনি গুগল এডসেন্স এর জন্য আবদেন করলে এডসেন্স পাবেন না। আপনার ওয়েবসাইট এর বয়স সর্বনিম্ন ৩ মাস হতে হবে। আবার ৩ মাস হলেই যে পাবেন তাও কিন্তুু না। আপনার নিচের ধাপগুলোও ভালভাবে পড়তে হবে। এমনকি আপনি ১ বছরেও এডসেন্স এপ্লাই করলে পাবেন না,  যদি না আপনার ওয়েবসাইট এর সব কিছু ঠিক না থাকে।

 পার্যাপ্ত পরিমানে কন্টেন্ট না থাকেলে

এখন আপনার ওয়েবসাইট এর বয়স ৩ মাস পার হয়েছে কিন্তুু এডসেন্স পাচ্ছেন না।  তার কারন হলো আপনার ওয়েবসাইট এ পর্যাপ্ত পরিমানের কন্টেন্ট নেই। কনটেন্ট থাকতে হবে সর্বনিম্ন ২৫ থেকে ৩৫ টি। আর যদি তার থেকে কম কনটেন্ট হয় তাহলে গুগল এডসেন্স পাওয়ার যোগ্যতা কম থাকবে।

 ভালমানের কন্টেন্ট থাকতে হবে

এবার আপনি ঠিক ২৫ থেকে ৩০ টা কনটেন্ট দিয়েছেন। ভাবছেন হয়তো এবার গুগল এডসেন্স পেয়েই যাবো…  আসলে একদম সত্য নয়। আপনার ওয়েসাইট এ কনটেন্ট থাকলেই হবে না।  অবশ্যই আপনাকে ভালমানের কনটেন্ট থাকতে হবে। এমন কনটেন্ট থাকতে হবে যেগুলো আপনার জন্য,  সমাজের জন্য,  অনলাইনের জন্য এবং গুগলের জন্য ভালোর দিকের কাজ করে। হ-য-ব-র-ল করে যদি আপনি কনটেন্ট লিখেন তাহলে আপনার ওয়েবসাইট গুগলের কাছে কোন দাম নেই।

ইউনিক কন্টেন্ট থাকতে হবে

আপনার ওয়েব সাইট এ সব সময় ইউনিক কনটেন্ট দেওয়ার চেষ্টা করুন। আপনি ইউনিক কনটেন্ট নেওয়ার জন্য মার্কেট প্লেস এ অনেক আর্টিক্যাল রাইটার পাবেন। দরকার হলে তাদের থেকে ইউনিক কনটেন্ট অর্থের বিনিময়ে লিখে নিন। বলা চলে আমিও একজন আর্টিক্যাল রাইটার।  ভাল লাগলে আমার কাছ থেকেও লিখে নিতে পারেন। তবুও কপি পোস্ট লিখে গুগল এডসেন্স পাওয়ার আশা করবেন না। আপনি সব ক্যাটগরিতে ৪ থেকে ৫ টি করে পোস্ট লিখে রাখুন।

ওয়েবসাইট এর হোস্টিং ভাল না হওয়া

ওনেকেই আছেন যারা বিভিন্ন কোম্পানি থেকে ওয়েব হোস্টিং কিনে থাকেন কিন্তুু হোস্টিং কোম্পানি কেমন তা যাচাই না করেই বিভিন্ন অফারে হোস্টিং কিনেন। তাদের জন্য মারাত্বক হতে পারে,  কারন আপনার সাইট এর আপটাইম সব সময় ৯৯.০০ % থেকে ১০০ % থাকতে হবে। সাধারনত আমরা বাংলাদেশিরা অফারের দিকে বেশি ঝুকি। কিন্তুুু কখনও দেখার চেষ্টা করি না যে আমার হোস্টিং স্লো না কি ভাল স্পিড দেয়। তবে আপনার হোস্টিং যদি ভাল স্পিড না দেয় তাহলে আপনি গুগল এডসেন্স পাবেন না।

ওয়েবসাইট এ ইউনিক ভিসিটর না থাকা

আপনার ওয়েবসাইট এ যদি অর্গানিক ভিসিটর না আসে তাহলে আপনি গুগল এডসেন্স পাবেন না। কারন গুগল সেই সকল ওয়েবসাইটকে এডসেন্স দেয় যাদের ভাল পরিমান অর্গানিক ভিসিটর আসে।  আপনি ইচ্ছে করলে বিভিন্ন স্যোসাল মিডিয়া থেকে ভিসিটর আনতে পারবেন,  সেগুলো গুগল কাউন্ট করবে স্যোসাল হিসবে। এগুলো ভিসিটর থেকে ভিসিটর পাবেন ঠিকেই কিন্তুু এডসেন্স পেলেও ইনকাম করতে পারবেন না।

ওয়েবসাইট ডিজাইন সুন্দর করে করা

আপনার ওয়েবসাইট যদি সুন্দর করে ডিজাইন না করা থাকে তাহলে ভিসিটর যেমন আপনার সাইটকে পছন্দ করবে না,  ঠিক তেমনি গুগলও করবে না।  এর জন্য আপনি আপনার সাইটকে এমন ভাবে সাজিয়ে রাখুন যেন আপনার সাইট এর ডিজাইন বেশি রঙালো না হয় এবং কমও না হয়। এছাড়া ক্যাটগরি, সাব ক্যাটাগরি, মেনু বার ঠিক মত সাজিয়ে দিন। তাহলে আপনি এডসেন্স পাবেন খুব দ্রুত।

ওয়েবসাই এ এসইও না করা

আপনাকে আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য ট্রাফিক আনার জন্য এসইও করুন। আপনি চাইলে প্রথমে অনপেজ এসইও দিয়ে শুরু করুন তারপর অফ পেজ এসইও করুন। এছাড়া আপনি কি-ওয়ার্ড রিসোর্চ টুলস দিয়ে টার্গেট কি-ওয়ার্ড দিয়ে সাইট র‍্যাংক করিয়ে নিন। এখানে আপনি একদিকে কেমন ভাল ডিএ ( ডমেইন অথরেটি) পিএ ( পেজ অথরেটি)  পাবেন ঠিক আপনি ভাল ভিসিটর পাবেন। এবার আপনি গুগল এডসেন্স পাওয়ার জন্য এপ্লাই করুন।

 ট্রামস & কন্ডিশন,  প্রাইভেসি,  কন্টাক পেজ তৈরি করুন

আপনি আপনার ওয়েবসাইট এর ট্রামস & কন্ডিশন ও আপনার সাইট এর প্রাইভেসি ও গোপনীয়তা সমন্ধে এবং আপনার সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা সমন্ধে সকল তথ্য দিয়ে রাখুন। আপনি যদি এসকল তথ্য না দিয়ে থাকেন তাহলে আপনি গুগল এডসেন পাবেন না। প্রত্যেক ওয়েবসাইট এর জন্য আলাদা আলাদা প্রাইভেসি ও কন্ডিশন থাকে।

টপ লেবেল ডমেইন ব্যবহার করুন

এটা খুবেই একটা কমন বিষয়।  অনেকেই স্বপ্ন দেখেন যে blogspot.com. wordpress.com এর ফ্রি সাইট থেকে ব্লগিং করে অনলাইনে আয় করতে চান। আসলে একদম ঠিক নয়। এগুলো দিয়ে আপনি যদি গুগল এডসেন্স এর আশা করেন তাহলে ৯০ % ভুল হবে। কারন গুগল সব সময় ভাল পেইড ডমেইনকে প্রাধান্য দেয়। আর আপনি যদি কখনও পেয়েও যান তাহলে আপনার ইনকামের থেকে পরিশ্রম বেশি হবে। তাই আপনি পেইড ডমেইন দিয়ে গুগলে এপ্লাই করুন।

এডাল্ট ও নিষিদ্ধ পণ্যের কন্টেন্ট থাকলে

আপনার ওয়েবসাইট যদি ১৮+ হয় তাহলে আপনি গুগল এডসেন্স এর আশা ছেড়ে দিন। এছাড়াও আপনার ওয়েবসাইট এর যদি কোন কনটেন্ট নিষিদ্ধ পণ্য যেমনঃ এ্যালকহল, নেশা জাতীয় দ্রব্য সহ এই ধরনের পণ্যের ইনফর্মেশন দিয়ে যদি কনটেন্ট লিখেন তাহলে আপনি গুগল এডসেন্স এর নিময়ে পড়বেন না। আপনি এই ধরনের পোস্ট থেকে বিরত থেকে গুগল এডসেন্স এর আবেদন করুন।

নিয়মিত ওয়েবসাইট এ লিখুন

অনেকেই আছে যে মাসে দু মাসে একটি করে পোস্ট লিখে। তারা এডসেন্স পাওয়ার আশা করবেন না। আপনি এডসেন্স পাওয়ার জন্য নিয়মিত লিখতে থাকুন। নিয়মিত লিখলে একদিকে যেমন আপনার ইনকাম বাড়বে অন্যদিকে আপনার ওয়েবসাইটকে গুগল প্রধান্য দিবে।

অন্য এড ব্যবহার করা

আপনি যদি অন্য এড ব্যবহার করেন তাহলে আপনি গুগল এডসেন্স পাবেন না। তাই আপনি যখন গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করবেন তখন অন্য এড কোডগুলো মুছে ফেলবেন। গুগল এড টিম আপনার ওয়েবসাইট যখন মনিটরিং করতে আসবে তখন দেখতে পাবে আপনার সাইট এ অন্য এড রয়েছে। তাই এগুলো একদম মুছে ফেলবেন।

এই বিষয়গুলো ছাড়া আপনার ওয়েবসাইট এ এড না পাওয়ার বিভিন্ন কারন থাকতে পারে। আপনি এসব কিছু দেখে শুনে গুগল এডসেন্স একাউন্ট এর জন্য আবেদন করবেন।  নিম্নে সে সকল কারনের কিছু তুলে ধরছি
০১. সঠিকভাবে এডসেন্স পলিসি তুলে না ধরা।
০২. আবেদনকারির বয়স ১৮ বছর পূর্ণ না হওয়া।
০৩. আপনার ওয়েবসাইট এর ভাষা সাপোর্ট না করলে।
০৪. Evil ওয়েব সাইট এ আপনার লিংক করা থাকলে।
০৫. ওয়েবসাইট এর প্রকৃত মালিক না হলে।
০৬. ওয়েবসাইট এর Navigation সহজে বুঝা না গেলে।
০৭. পূর্বে কখনও এডসেন্স একাউন্ট ব্যান হয়ে থাকলে।
০৮. আপনার ওয়েব সাইট এ Malware দ্বাড়া আক্রান্ত হলে।
উপরের লেখাটি হয়তো আপনার জন্য খুবেই গুরুত্ববহন করে। তাই আপনি যদি আগে থেকে গুগল এডসেন্স একাউন্ট এর জন্য আবেদন করে থাকেন এবং আপনি যদি না পেয়ে থাকেন তাহলে দেখতে পারেন আপনার সাইট এর কি সমস্যা। আপনি সমস্যাগুলো ঠিক করুন এবং আবার এপ্লাই করার জন্য আবেদন করুন।

লেখাটি আপনার কাছে কেমন লেগেছে, অনুগ্রহ করে সে অনুযায়ী ভোট দিন

ভোট দিতে স্টার বাটনে চাপুন

We are sorry that this post was not useful for you!

Let us improve this post!

Tell us how we can improve this post?

পোস্টটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Comment